কুমিল্লা সদর দক্ষিণে ধর্ষণ চেষ্টার বিচার চাওয়ায় মারধর: গ্রাম সর্দারসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

LaksamDotKom
By LaksamDotKom ফেব্রুয়ারি ৯, ২০১৭ ০৬:৩৫

কুমিল্লা সদর দক্ষিণে ধর্ষণ চেষ্টার বিচার চাওয়ায় মারধর: গ্রাম সর্দারসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

লাকসাম: কুমিল্লা সদর দক্ষিণের দোশারীচোঁ গ্রামে ধর্ষণ চেষ্টার বিচার চাওয়ায় গৃহবধু ও তার স্বামীকে মারধর করে ঘরে তালা ঝুলিয়ে বাড়ী থেকে বের দিয়েছে গ্রাম সর্দারসহ ধর্ষনকারীর পক্ষের লোকজন। এ ঘটনায় ভিকটিম অহিদা বেগম বাদী হয়ে কুমিল্লা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্রুনালে ধর্ষন চেষ্টাকারী গোলাম মোর্শেদ মিল্টন ও গ্রাম সর্দার আবদুল লতিফ মিস্ত্রীসহ ৩জনের বিরুদ্ধে মামলা (সিপি-১৩৯/১৭) দায়ের করেছেন। বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে স্থানীয় ১২নং পেরুল দক্ষিণ ইউপি চেয়ারম্যান এজিএম শফিকুর রহমানকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দেয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলার বিবরন ও স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, উপজেলার পেরুল দক্ষিণ ইউনিয়নের দোশারীচোঁ গ্রামের মৃত আজিজুর রহমানের ছেলে সাবেক ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি গোলাম মোর্শেদ মিল্টন একজন মাছ চাষী। একই গ্রামের কৃষি শ্রমিক আবুল বাশারের বাড়ীর পশ্চিম-উত্তর পাশেও মিল্টনের একটি ফিশারী রয়েছে। ফিশারীতে কাজ করার সুযোগে সে বিভিন্ন সময়ে নিজের প্রয়োজনে তাদের বাড়ীতে আসা যাওয়া করত। একপর্যায়ে সে আবুল বাশারের সুন্দরী স্ত্রীর প্রতি আসক্ত হয়ে পড়ে। বিভিন্ন সময়ে সে বাশারের স্ত্রী অহিদা বেগমকে কু-প্রস্তাবসহ যৌন নিপিড়ন করত। গত ১লা ফেব্রুয়ারি বুধবার সকাল অনুমান ১১টায় আবুল বাশারের অনুপস্থিতি টের পেয়ে অহিদা বেগমের ঘরে প্রবেশ করে মিল্টন। ওই সময় সে অহিদা বেগমকে জোরপূর্বক ধর্ষনের চেষ্টা করে। কিন্তু অহিদা বেগমের নাবালিকা মেয়ের শোরচিৎকারে মিল্টন দ্রুত পালিয়ে যায়। বাড়ীতে ফিরলে অহিদা বেগম বিষয়টি স্বামীকে জানায়। পরে আবুল বাশার গ্রাম সর্দার আবদুল লতিফ মিস্ত্রীসহ গ্রামের গণ্যমাণ্যদের নিকট নিজের স্ত্রীকে ধর্ষন চেষ্টার বিচার চায়। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে ওই দিন দুপুর ১২টায় গ্রাম সর্দার আবদুল লতিফ মিস্ত্রী, ধর্ষনের চেষ্টাকারী মিল্টন ও তার সহযোগী আবুল কাশেম গৃহবধু অহিদা বেগমকে মারধর করে টেনে হিচড়ে ঘর থেকে বের করে দেয়। ওই সময় স্ত্রীকে মারধরে বাঁধা দেয়ায় স্বামী আবুল বাশারকেও তারা মারধর করে। পরে ঘরে তালা ঝুলিয়ে তাদেরকে বাড়ী থেকে বের করে দেয় গ্রাম সর্দার। পরে প্রতিবেশীরা আবুল বাশার ও অহিদা বেগমকে লাকসাম সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করায়। এ ঘটনায় রোববার অহিদা বেগম বাদী হয়ে ৩জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন।

অহিদা বেগম বলেন, মিল্টন আমার ইজ্জত নষ্ট করতে চেয়েছিল। আমি তার শাস্তি চাই। তাছাড়া, সর্দারের কাছে বিচার দিয়ে উল্টো হামলার শিকার হয়েছি। ওরা আমাকে ও আমার স্বামীকে মারধর করে ঘরে তালা ঝুলিয়ে বাড়ী থেকে বের করে দেয়। পরে স্থানীয় মেম্বার ও গণ্যমাণ্যদের সহায়তায় আমি বাড়ীতে ফিরেছি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই গ্রামের এক আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, বিএনপি সরকারের সময়ে মিল্টন ঘোষ পুকুরে মাছ চাষের সুবাদে পুকুর পাড়ের এক মেয়েকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে অনৈতিক সম্পর্ক করেছিল। কিন্তু দলীয় ক্ষমতা ও প্রভাবশালী হওয়ায় কেউ তখন প্রতিবাদ করতে পারেনি।এ বিষয়ে গোলাম মোর্শেদ মিল্টন’র ব্যক্তিগত মোবাইলে (০১৭৪২-৫১৮৫৭৬/০১৭২৬-২৬৮৮৭৯) বার বার চেষ্টা করলে মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়।

মামলার আইনজীবি এডভোকেট বিকাশ চন্দ্র সাহা বলেন, আমার বাদীকে ধর্ষণের চেষ্টা ও যৌন নিপিড়ন করা হয়েছে। একইসাথে এর বিচার চাওয়ায় গ্রাম সর্দারের নেতৃত্বে তাকে মারধর করে বাড়ী থেকে বের করে দেয়া হয়েছে। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে তদন্তের জন্য স্থানীয় চেয়ারম্যানকে দায়িত্ব দিয়েছেন। পেরুল দক্ষিণ ইউপি চেয়ারম্যান এজিএম শফিকুর রহমান বলেন, আদালত থেকে মামলার তদন্তের দায়িত্ব পেয়েছি। শীঘ্রই তদন্ত কার্যক্রম শুরু করব।

(22)

LaksamDotKom
By LaksamDotKom ফেব্রুয়ারি ৯, ২০১৭ ০৬:৩৫
Write a comment

No Comments

No Comments Yet!

Let me tell You a sad story ! There are no comments yet, but You can be first one to comment this article.

Write a comment
View comments

Write a comment

Leave a Reply